• Home
  • Author: Subhosree Dey

নব্বইয়ের দশকের সন্ধ্যেগুলো…

আমাদের ছোটবেলায় সন্ধ্যেগুলো মায়ামাখানো ছিল… প্রায়ই লোডশেডিং হতো। চিমনি, হ্যারিকেনের আলোর পাশাপাশি এমার্জেন্সি লাইটও ছিল। কোনো কোনো গ্রীষ্মের সন্ধ্যেবেলা উঠোন কিংবা ছাদে শতরঞ্জি বিছিয়ে বইখাতা নিয়ে পড়তে বসা হতো। খোলা হাওয়ায় তারাভরা আকাশের নিচে বসে কেটে যেত আলোনেভা মুহূর্তগুলো। সেসবই সুখস্মৃতি।  ঝিঁঝিঁর ডাক শোনা যেতো কোনো কোনো সন্ধ্যেতে। ভাইবোনেরা একসাথে…

ভালোবাসা যদি তুমি চাও

ভালোবাসা তো একটা গভীর বোধ… সবার সেই বোধ থাকেনা। অনেকে ভালোবাসেও হিসেবনিকেশ করে। তাদের ভালোবাসার গভীরতা নেই, ভাবনার পরিধিটাও ক্ষুদ্র। আমাদের চারপাশে থাকা অনেক মানুষই ভীষণ অগভীর। এদের ভাবনা যেখানে শেষ হয় সেখান থেকেই ভাবতে শুরু করে কিছুসংখ্যক গভীর মানুষ। – তুমি কী মনে করো, যারা সত্যি ভালোবাসে তারা কখনো…

সেদিন দুজনে

রোহিনী আর তুষার দুজনের মধ্যে তুষার বয়সে ছোট। সমাজের চোখে হয়তো ওদের বন্ধুত্ব বেমানান… তবে আশেপাশে থাকা মানুষদের জন্য ওরা কি নিজেদের ইচ্ছেকে গুরুত্ব দেবেনা? জানতে চোখ রাখুন... – আমার সাথে ডেট করে কী মনে হচ্ছে? রুড? ঠোঁটকাটা? – নাহঃ, স্পষ্টবাদী। মানুষের যেমন হওয়া উচিত তুমি সেরকম। (তুষারের কথা শুনে…

পাহাড় আমায় দিচ্ছে ডাক

পাহাড় আমায় দিচ্ছে ডাক,  সব মনখারাপী নিপাত যাক!  জটিল জীবন পিছনে ফেলে, হারিয়ে যাবো সেথায় গেলে! সাউথ সিকিমের ছোট্ট পাহাড়ী শহর রাবাংলা। প্রায় ৮০০০ ফুট উঁচুতে শান্ত, কুয়াশামাখা, নিঝুম ভ্রমণক্ষেত্র। নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন থেকে গাড়িতে কয়েকঘন্টা সময় লাগে। পাকদণ্ডী বেয়ে ওঠার সময়ে পাহাড়ী রাস্তার দুইধারের প্রাকৃতিক পরিবেশ উপভোগ করার অনুভূতি…

“খেলা শুরু” : শুরু থেকে শেষ নাকি শেষ থেকে শুরু?

"খেলা শুরু" ওয়েব সিরিজটি ভীষণই থ্রিলিং। সিরিজটি দেখলেই বোঝা যায় কিভাবে দুজন মানুষের জীবন বদলে যেতে থাকে!  Klikk বর্তমানে বাংলা ওটিটি প্লাটফর্মগুলির মধ্যে অন্যতম। বিভিন্ন ভালো মানের ওয়েব সিরিজ দেখার সুযোগ পাচ্ছি আমরা। "খেলা শুরু" সিরিজটি দেখেছি কয়েকমাস আগেই। দেখার পরে ওটা নিয়ে লিখবো ভেবেছিলাম। যারা ট্রেলার দেখেছেন তারা জানেন…

আলোকলতার চিঠি

কাফের, দেখতে দেখতে ২০২১ এর নভেম্বর চলে এলো। উৎসবমুখর দিনগুলো কেটে গেল, কিভাবে কাটলো সেটা বড় কথা নয়, কেটে গেল এটাই আসল কথা। ইংরাজি বছরটাও ফুরিয়ে এলো যেন খুব তাড়াতাড়ি! অসুখের রাত বড় লম্বা হয় বটে তবু আমার মনে হচ্ছে অভিশপ্ত বছরটা বড্ড তাড়াতাড়ি চলে গেল। তবে দুঃখ শেষ হয়নি…

ফেলে আসা দিনগুলো

আজ থেকে বহুবছর পরেও যদি পঞ্চান্ন বছরের একজন মহিলাকে তার ফেলে আসা অপূর্ণ প্রেমের কথা জিজ্ঞাসা করা হয় হয়তো তিনি খুব হাসতে হাসতে সেদিন পুরোনো কিছু কথা বলবেন। সেদিন হয়তো ব্যর্থ প্রেমের জন্য তাঁর দুঃখবোধ নেই। তাঁর হাসির অর্থ কী এটা যে তিনি আজকের দিনগুলো ভুল এইজন্য হাসছেন? কিংবা নিজের…

যারে যায়না ধরা

মনকে রাঙিয়ে দিয়ে যারা ধরা দেয়না, সম্পর্কে না জড়িয়ে পালিয়ে যায় তাদের তো প্রবঞ্চক বলাও যায়না। এরা ধরা দিতে অনিচ্ছুক তাই উন্মুক্ত আকাশে উড়ে বেড়ায়। এমনকি ছেড়েও যায়না। কাছাকাছি থাকে কিন্তু অঙ্গীকারে বড় ভয় এই মানুষগুলোর। কিংবা এরা খুঁজে চলেছে "বেটার অপশন"! আর এই খোঁজার চক্করে জীবনের "বেস্ট" চয়েসকে দেখে…

বড়শুলের দে বাড়িতে মা আসেন প্রেমময়ী রূপে

পূর্ব বর্ধমান জেলার বড়শুল একটি বর্ধিষ্ণু অঞ্চল, বড়শুলের দে পরিবারে মা দুর্গা আসেন প্রেমময়ী রূপে। দেবাদিদেব মহাদেবের বাম উরুতে অধিষ্ঠান করেন দেবী। দেবীর মুখে থাকে প্রশান্তি এবং তাঁর দৃপ্ত চোখে দেখতে পাওয়া যায় প্রেমময় স্নেহ। দেবী এখানে মহিষাসুরমর্দিনী নন, দশভূজাও নন। বাঘছাল পরিহিত শিবের কোলে বসে দ্বিভূজা দেবী পূজিত হন।…

অন্তহীন : শেষ না হওয়া অপেক্ষা এবং ভালোবাসার গল্প

"অন্তহীন" আসলে ফুরিয়ে না যাওয়া ভালবাসার কথা বলে… যে অপেক্ষার কোনো শেষ নেই সেই গল্প বলে। অন্তহীন বাংলা সিনেমার ইতিহাসে একটা মাইলস্টোন যেটা ২০০৯ সালে বাঙালিকে নতুন করে আরেকবার ভাবিয়ে তুলেছিল। আজ থেকে একযুগ আগে এই সিনেমা মুক্তি পায়। লেখালিখিও হয়, সমালোচক এবং দর্শকদের থেকে যথেষ্ট প্রশংসা কুড়িয়েছে সিনেমাটি।   …