মেয়ে

আমি একটা মেয়ের মধ্যে অনেক রুপ দেখেছি,
আমি দেখেছি কিভাবে একটা মেয়ে সময়ের সাথে সাথে নিজেকে বদলে নেয়। কিভাবে জীবনের প্রতিটা ধাপে নিজেকে খাপ খাওয়ানোর প্রচেষ্টায় লিপ্ত হয়।
আমি বিশাল চঞ্চল একটা মেয়েকেও শান্ত, নিশ্চুপ হতে দেখেছি যখন তার মনের মানুষটা তার মন টুকরো টুকরো করে ভেঙ্গে দেয়।
আমি একটা মেয়েকে দেখেছি যে ভিষন রকমের অগছালো। আবার সেই মেয়ে যখন বিয়ের পর তার এতো বড়ো একটা সংসারকে সাজিয়ে গুছিয়ে নেয় তখন আমি অবাক হয়েছি তা দেখে।
আমি দেখেছি একটা মেয়ে যে ক্ষুদা সহ্য করতে পারে না, আবার সেই মেয়েটিই তার সন্তানের মুখে খাবার তুলে দিতে মাঝে মাঝে না খেয়ে রাত কাটাতে।
আমি দেখেছি অল্প আঘাতে কেঁদে ফেলা মেয়েটিও প্রতি মাসের অসহ্য যন্ত্রনা নিয়ে দিব্য স্কুল,কলেজ,অফিস ও সংসার সামলাতে, আমি দেখেছি তাকে মা হতে।
আমি একটা মেয়ের বহু রুপ দেখেছি, আমি একটা মেয়েকে ‘মেয়ে’ থেকে ‘নারী’ হতে দেখেছি। খুব বোকামো বা খুব কম জ্ঞানের অভাবের জেরে অনেকেই মনে করেন যে মেয়ে মানেই বোঝা, আমি তা ভাবতে পারি নি। কি করে ভাববো!! আমি তো দেখেছি বহু মেয়েকে সাংসারের হাল ধরতে, নিজের বাবা মা এর চিকিৎসার, ভাই- বনের পড়াশোনার খরচ বহন করতে। আমারা যে কাঁধটা দূর্বল ভাবি বাস্তবে তার থেকে ভরসাযোগ্য কাঁধ আর নেই। হ্যাঁ, ইতিহাস ঘাটলে বহু উদাহরণ খাড়া করা যাবে যে একটি মেয়ে বা নারী কিভাবে অন্যায়, অপরাধ করেছে, কিন্তু তা দেখে একটা সমস্ত জাতিকে দোষারোপ করাটা ভুল হবে। করণ সময়ে সময়ে উভয় জাতিরই মানুষ সে পুরুষ হোক বা নারী, অনেক ভুল, অপরাধ, অন্যায় করেছে। মানুষ ভুল করলে মানুষকেই দোষারোপ করা হোক, লিঙ্গ কে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *