মন্দার

‘মন্দার’ এই নামটি ইদানিং হইচই ফেলে দিয়েছে। উইলিয়াম সেক্সপিয়ারের মেকবেথের থেকে প্রাভাবিত এবং অনির্বাণ ভট্টাচার্যের এই প্রথম পরিচালনা করা ওয়েব সিরিজ। আমরা এতোদিন গায়ক অনির্বাণের কাজ দেখেছি, অভিনেতা অনির্বাণের কাজ দেখেছি, কিন্তু ওই প্রথম আমরা পরিচালক অনির্বাণের কাজ দেখলাম।

মন্দার দেখার পর এই কথা বলা যেতে পারে যে ওয়েবসিরিজ টা ওয়েবসিরিজ জগতের ইতিহাসে বহুকাল বিরাজ করতে চলেছে, মানুসের মনে লেগে থাকার মতো গল্প, একটা জীবন চক্র যা এই গল্পে দেখানো হয়েছে। একজন মছের ভেড়ির মালিক ডাব্লু, যে নিজের সাম্রাজ্য টিকিয়ে রাখার জন্য যেকোনো পদক্ষেপ নেওয়ার আগে একবারও ভাবে না, একজন ভাড়াটিয়া গুন্ডা, মন্দার যে ডাব্লুর হয়ে কাজ করে এবং যাকে এই গল্পে মেকবেথ হিসেবে দেখানো হয়েছে, যার কাছে অনুভূতি নামক বস্তুটাই নেই, একজন নেতা যে এইসব আগুনের নিজের হাত গরম করে, একজন দুর্নীতিগ্রস্ত পুলিশ যদিও এই চরিত্রে আমরা অনির্বাণকে দেখে অবাকই হয়েছিলাম কারণ এর আগে এমন চরিত্রে তিনি অভিনয় করেন নি, একজন আছেন মন্দারের সব বেয়ানি বৈধ- অবৈধ কাজের অংশিদার, আছে একজন রহস্যময় বুড়ি মজনু এবং তার রহস্যময় ছেলে। আর সবশেষে আছে এই গল্পের অন্যতম প্রধান এবং সক্রিয় চরিত্র মন্দারের স্ত্রী যাকে এখানে লেডি মেকবেথ হিসেবে দেখানো হয়েছে।

প্রত্যেকের অভিনয় এক কথায় দুর্দান্ত এবং সমপরিমান ভারী। গল্পটির শুরু এবং শেষ হয়েছে গেইলপুরে। সেখানের জীবনযাত্রা, মানুষের ভাষা এবং তাদের জীবনের ঝড় সবকিছুই খুভ সুন্দর ভাবে ফুটে উঠেছে এই গল্পে। রাজা হওয়ার লোভ মাথাচাড়া দিয়ে মানুষ কোন পর্যায়ে যেতে পারে তা মন্দাের চরিত্র দেখলে বুঝা যায়। মন্দারের শুরুতেই মন্দারকে দেখানো হয়েছে একজন নিষ্ঠুর মানুষ হিসেবে এবং তার সাথে সাথে একজন অসহায় মানুষ হিসেবে, যাকে স্ত্রীর প্রতি ডাব্লুর লালসা জেনেও চুপ থাকতে হয়। একজন পুলিস অফিসার যার কাছে যৌনতা সব, তার জন্য সে সবকিছুই করতে পারে। আর এই চরিত্রে অনির্বাণ নিজে অভিনয় করে চরিত্রটিকে এক অন্য মাত্রা দিয়ে দিয়েছে।

মন্দার দেখলে উপর উপর মনে হতেই পারে যে গল্পটাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে মন্দার, লাইলি, মকাই, বঙ্কা, ডাব্লু প্রমুখেরা কিন্তু গল্পকে আসলে এগিয়র নিয়ে যাচ্ছে মজনু, যে যতোবার স্ক্রিনে এসেছে ততোবারই এক নতুন চমক নিয়ে। একটা ভয়, একটা রহস্য, একটা সাসপেন্স ও কিছু ভবিষংবাণীমুলক কথা, মিলে মিশে একটা টান টান উত্তেজনা বজায় রাখা হয়েছে পুরো গল্পে।
মন্দার ওয়েবসিরিজের আরো কিছু গোপন রহস্য উন্মোচন করতে হলে ওয়েবসিরিজটি দেখতে হবে, যা হইচই-এ বিরাজমান।

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.