fbpx
Food and Health

ফাস্টফুড থেকে চোখ সরিয়ে শাকসবজিতে মন দিন

ফাস্টফুড স্থূলত্ব এবং ক‍্যান্সারের অন‍্যতম কারণ। খালি ক‍্যালোরি এবং অতি প্রক্রিয়াজাতকরণের জন‍্য এই জাঙ্ক ফুড ক‍্যন্সারের ঝুঁকি বাড়াচ্ছে।

যদিও ফাস্ট ফুড চেইনগুলি খাদ‍্যের গুনগত মান ও স্বাস্থ্যকর বিকল্পগুলি দেওয়ার চেষ্টা করছে। তবুও গবেষণায় দেখা গেছে তাদের মেনুগুলির স্বাস্থ্যের গুনগত মানের কোনো পরিবর্তন হয়নি।

রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রগুলি থেকে প্রাপ্ত তথ্য থেকে জানা যায় যে ২০১৩ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে ৩৬.৬ শতাংশ প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষ ফাস্টফুড খেয়েছিল।

2018 সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের দ্বারা পরিচালিত একটি সমীক্ষা অনুসারে, প্রায় 74 শতাংশ বাবা-মা তাদের বাচ্চাদের জন্য ফাস্টফুড রেস্তোঁরাগুলিতে অস্বাস্থ্যকর খাবার কেনে।

তদন্তকারীরা লক্ষ করেছেন যে, ২০১৩ সালে  জনপ্রিয় ফাস্টফুড চেইনগুলির মধ্যে কয়েকটি তাদের শিশুদের মেনুগুলিতে আরও স্বাস্থ্যকর বিকল্পগুলি দেওয়ার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছিল।

এখন, একটি নতুন সমীক্ষায় দেখা গেছে যে বেশিরভাগ ফাস্টফুড রেস্তোঁরা আসলে  যুক্তিযুক্ত এবং স্বাস্থ্যসম্মত বাছাইয়ের পরেও সামগ্রিকভাবে স্বাস্থ্যকর হয়ে ওঠেনি।

বিশ্বজুড়ে জাঙ্ক ফুডের ব্যবহার দিন দিন বাড়ছে যা ভবিষ্যতের পক্ষে ভাল নয়। সমস্ত বয়সের লোকেরা জাঙ্ক ফুড খেতে পছন্দ করে এবং সাধারণত যখনই তারা জন্মদিনের পার্টি, বিবাহ বার্ষিকী ইত্যাদির মতো পরিবারের সাথে বিশেষ সময় উপভোগ করে তারা ফাস্ট ফুড খেতে পছন্দ করে। তারা সহজেই নরম পানীয়, ওয়েফার, চিপস, নুডলস, বার্গার গ্রহণে অভ্যস্ত হয়ে যায়। এছাড়াও পিজ্জা, ফ্রেঞ্চ ফ্রাই, চাইনিজ এবং বাজারে আরও বিভিন্ন ধরণের ফাস্টফুড পাওয়া যায়।

লোকেরা মশলাদার এবং মিষ্টি জাতীয় খাবারগুলি খেতে পছন্দ করে। এটি স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে খুবই খারাপ। সমীক্ষা অনুসারে মানুষ ফলমূল ও শাকসব্জির পরিবর্তে জাঙ্ক ফুডের  জন‍্য বেশি অর্থ ব্যয় করে।

এই স্থূলত্ব পরে বিপজ্জনক রোগে পরিণত হয়। আমেরিকায় অনেক শিশু স্থূলরোগে আক্রান্ত হয়। এখন হৃদরোগ, স্নায়ুর সমস্যা খুব সাধারণ হয়ে উঠেছে, এবং এই রোগগুলো মানুষকে মৃত্যুর দিকে নিয়ে যায়।

জীবন সবসময় স্বাদযুক্ত এবং মসৃণ হয় না। তাই স্বাস্থ্যের যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। স্বাস্থ্যকর খাবার খান এবং আরও বেশি করে শাকসবজি এবং ফল ব্যবহার করুন।

সুস্থ ও সতেজ থাকতে ফাস্টফুড যতটা সম্ভব ত‍্যাগ করুন। আমাদের কেবল একটি জীবন রয়েছে। নিজের দোষে জীবনের সময়কে একে একে হ্রাস করবেন না।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

Close
Back to top button
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker