fbpx

সঙ্গে ঘরোয়া উপায়, তো ‘Suntan’ বিদায়

সানট্যান, একটা Common সমস্যা। দিনদিন সূয্যিমামা তার তেজ বাড়াচ্ছে, আর তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে আমাদের স্কিনে সানট্যান।
আজকালকার ব্যস্ত দুনিয়ায় সবাই কর্মরত, সবাইকেই বাইরে বেড়োতে হয়। ফলস্বরূপ সানট্যান ফ্রি।
তারপর সেই একগাদা টাকা খরচা করে বিউটি পার্লারে গিয়ে রূপচর্চা করাতে হয়।
তবে সানট্যান দূর করার জন্য কিছু ঘরোয়া উপায়ও আছে। জানি আপনি বলবেন যে, সারাদিন কাজের মধ্যে থাকতে হয় সকলকেই, আপনাদের এত সময় নেই ঘরোয়া উপায়ে নিজের যত্ন নেওয়ার।
তবে যদি বলি কিছু ঘরোয়া উপায় একদমই সময়সাপেক্ষ নয়। আপনি নিজের দৈনন্দিন কাজ সারতে সারতেই টুক করে নিজের যত্ন নিয়ে নিতে পারেন। আর আপনার সানট্যানও হবে একদম উধাও।

■প্রথমেই বলে দিই যে শুধু বাড়িতে বা পার্লারে গিয়ে সানট্যান দূর করালে হবে না। যত কম সম্ভব সানট্যান যেন কম হয় আমাদের, সেই বিষয়ে আগে নজর দিতে হবে। তার জন্য কয়েকটা জিনিস করতে হবে:-

●1. বাইরে বেরোলে অতি অবশ্যই সানস্ক্রিন ইউজ করতে হবে। মাথায় রাখবেন SPF যুক্ত সানস্ক্রিন ব্যবহার করবেন অবশ্যই। SPF হলো Sun Protecting Factor/Formula.
সানস্ক্রিন কেনার সময় কমপক্ষে SPF 20 দেখে কিনবেন।
বাজারে বিভিন্ন ধরণের বিভিন্ন SPF যুক্ত সানস্ক্রিন বা সানস্ক্রিন লোশন কিনতে পাওয়া যায়। নিজের ত্বক অনুযায়ী কিনে নিন এবং রোদে বাইরে বেরোলে অবশ্যই মেখে বেরোবেন।

●2. ভীষণ অয়েলি স্কিন যাদের তারা অনেকেই সানস্ক্রিন ক্রিম বা সানস্ক্রিন লোশন ব্যবহার করতে পারেনা, বা যাদের ভীষণই ঘামের সমস্যা তাদেরও একই সমস্যা হয়।
তাদের জন্য বলছি, আপনারা SPF যুক্ত সানপাউডার ইউজ করুন। Compact Powder, মানে আমরা চলতি বাংলায় যাকে Face Powder/Press Powder বলে থাকি। সেই পাউডার SPF যুক্ত দেখে কিনে নেবেন। আর অতি অবশ্যই রোদে বেরোনোর আগে মুখে মেখে বেরোবেন।

●3. অতি অবশ্যই সানগ্লাস আর ছাতা ব্যবহার করবেন।
○ সানগ্লাস একটু বড় ফ্রেমের দেখে কেনার চেষ্টা করবেন যাতে যতটা বেশি সম্ভব চোখের এরিয়াটা কভার করতে পারে।
○ ছাতার কাপড় কালো রঙের হলে বেশি ভালো হয়। খুব বেশি স্বচ্ছ কাপড়ের ফ্যান্সি ছাতা প্রচন্ড রোদে না ব্যবহার করাই ভালো।

■ এবার আসুন দেখে নিই কি কি সহজ ঘরোয়া উপায়ে আমরা রোদের জন্য হওয়া সানট্যান দূর করতে পারি:-

■1. আলুর রস। হ্যাঁ আলুর রস হলো সানট্যান দূর করার এক অনবদ্য টোটকা। আর আলু সবার কিচেনেই মজুত থাকে, অতএব পার্লারে টাকা খরচা না করে, আলু দিয়ে নিজের ত্বকের এই কালো পরত দূর করাটা একদমই কঠিন নয়।
● এবার জানুন কিভাবে আলুর রস ব্যবহার করলে আপনার সানট্যান দূর হবে। বেশ কয়েক প্রকার ভাবে আলুর রস ব্যবহার করা যায়:-

●A. প্রথমে মুখ অবশ্যই পরিষ্কার করে নেবেন। ফেস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধোওয়ার পরে, আলু একটু থেতো করে রসটা পুরো মুখে মেখে নিন, তারপর আপনার দৈননন্দিন কাজ সেরে নিন। 15মিনিট পরে মুখ ধুয়ে নিন। দু-তিনদিন করলেই রেজাল্ট আপনি নিজে আয়নায় দেখতে পাবেন।
●B. আলু গ্রেটারে আলুর টুকরোকে প্রথমে গ্রেট করে নিন, তারপর আলুর রস নিংড়ে বের করে নিন একটা বাটিতে। তারপর মুলতানি মাটির সঙ্গে ভালোভাবে মিশিয়ে তৈরী করুন একটা ফেস প্যাক। ফেস প্যাক মুখে লাগিয়ে একটু রিল্যাক্স করুন। 15 মিনিট পরে প্লেন জল দিয়ে ভালো করে মুখ ধুয়ে নিন।
সপ্তাহে দুবার এই ফেসপ্যাক ব্যবহার করুন। সানট্যান পালিয়ে আপনার স্কিন হয়ে উঠবে চকচকে।

■2. লেবুর রস। লেবুর রসও আরেকটি সানট্যান দূরের অস্ত্র। তবে লেবুর রস মুখে সরাসরি লাগাবেন না।
গোলাপজলের সঙ্গে কম পরিমাণে মিশিয়ে তারপর স্কিনে অ্যাপ্লাই করবেন।
5-10 মিনিট রেখে প্লেন জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

■3. সানট্যানের আরেকটা মোক্ষম ওষুধ হলো টম্যাটো।
টম্যাটো স্লাইস করে কেটে দানাগুলো একটু বেছে নিয়ে পুরো মুখে-গলায়-হাতে মেখে নিন। 15 মিনিট পরে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত এটা করলেই সানট্যান লেজ গুটিয়ে পালাবে।

■4. শশার রসও ভীষণ কার্যকারী সানট্যান দূর করতে। শশা স্লাইস করে কেটে মাখতে পারেন, আবার শশার রসের সাথে মুলতানি মাটি মিশিয়ে ফেসপ্যাক হিসেবেও ব্যবহার করতে পারেন। 15 মিনেট পরে ধুয়ে ফেলুন জল দিয়ে। স্কিন হয়ে উঠবে ঝকঝকে।

ব্যস আর কি… উপরিউক্ত এই কয়েকটা উপায় ট্রাই করুন, দেখবেন সানট্যান পালিয়ে আপনার পুরোনো স্কিনের রঙ আবার ফিরে পেয়েছেন। গরমে সুস্থ থাকুন, নিজেকে যত্নে রাখুন।

Leave a Reply