fbpx
Special Story

কথা দেওয়া থাক (পর্ব- ৩)

কথা দেওয়া থাক

পর্ব- ৩

মেঘ: কিরে? এখনও বসে যে! বিরহ পালন? বাড়ি যাবিনা?

তিন্নি: ভালো লাগছেনা। আলুকাবলি খেতে যাবি?

মেঘ: পাগলি একটা! চল, আজ মাটির ভাঁড়ে একটা ইস্পেশাল চা খেয়ে আসি মধু বিস্কুট সহযোগে, মুড পুরো স্প্রাইট হয়ে যাবে!

তিন্নি: এই অসময়ে চা! মাথাটা গেছে পুরো না রে?

মেঘ: এক্সকিউজ্ মি, আমি কি তিন্নি সেনগুপ্তর সাথে কথা বলছি? মানে যে ডিসেম্বরের লেপের আদর থেকে বঞ্চিত করে রাত ১-টার সময় দোকান খুলিয়ে আমায় আইসক্রিম আনা করিয়েছিল?
তিন্নি তোর মুখে এই “অসময়” শব্দটা না, জাস্ট মানায় না রে! বিশ্বাস কর!

তিন্নি: কোথাও বসলে ভালো হতো না, এই ভিড় চারিদিকে, ভালো লাগছেনা।

মেঘ: আহম্, কি ব্যাপার বলতো? নিভৃতে থাকার ইচ্ছেরা কেমন highly suspicious ঠেকছে…

তিন্নি: যা তা তুই একটা। উফ্, কতদূর তোর সেই ইস্পেশাল চায়ের দোকান? ক্যাব ডাকি?

মেঘ: এলেন আমার গরীবের হেলেন গো! চল চুপচাপ। হাঁটবো।

তিন্নি: আমি হিল পড়ে তো, পারবোনা বেশি হাঁটতে।

মেঘ: ওইজন্য বলি হাওয়াই চটি পড়ার অভ্যেস কর। হেগ থেকে হাওড়া কাঁপছে ওতে, আর তুই কিনা রনপার মতো…
হ্যাঁ, মানছি ছোটোবেলা কমপ্ল্যান খাসনি, বাট্ ইয়েট!

তিন্নি: জ্বালিয়ে মারলো ছেলেটা আমায়। উফফ্, চল!
………………….

তিন্নি: এই আর কতদূর? পা খুলে যাবে তো এবার। দিল্লী নিয়ে যাচ্ছিস নাকি হ্যাঁ! দ্যাখ মেঘ করছে, ছাতাটাও আজ…

মেঘ: করুক নাহ্…
দাদা, দুটো স্পেশাল চা, এলাচ দিয়ে।

তিন্নি: এই আমি তো এলাচ খা…

মেঘ: মধু বিস্কুট না প্রজাপতি?

তিন্নি: ওই যে ওটা, উপরে পোস্ত দেওয়াটা… এই রে বৃষ্টি নামলো যে রে!

মেঘ: চটপট গলায় ঢাল চা-টা, বেরোবো।

তিন্নি: মানেটা কি! এই বৃষ্টিতে কোথায় যাবি রে! হ্যাঁ! আমার কিন্তু টনসিল…

মেঘ: আগের মত বৃষ্টিতে হাঁটবো রাস্তায়…
আমার হারিয়ে যাওয়া তিন্নিটাকে খুঁজতে আরও একবার হারাই না হয়!

তিন্নি: জ্বর বাঁধলে?

মেঘ: প্যারাসিটামল।

তিন্নি: ধ্যাৎ!

চলবে…

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close

Adblock Detected

Hi, In order to promote brands and help LaughaLaughi survive in this competitive market, we have designed our website to show minimal ads without interrupting your reading and provide a seamless experience at your fingertips.