fbpx
Special Story
Trending

ঋতু পরিবর্তন

আজকাল বেশ উষ্ণতার গড় পরিবর্তন হয়ে চলেছে। এই রোদ তো, এই বৃষ্টি; যেন ক্ষণিকে ঋতু বদলাচ্ছে।  বেশ অনেকদিন পর তাদের দেখা। কলেজস্ট্রীট এর চারমাথার মোড়ে। বসন্ত এখন পড়াশোনা শেষ করে চাকরির জন্য পরীক্ষা দেবে।
বসন্ত বইয়ের দোকানে তার পরীক্ষার জন্য mcq এর বই কিনেছে। সারা দুপুর খুঁজেছে সেই বইটা। শেষ অব্দি এক বই এর দোকানে পুরোনো এডিশন এর বই পাওয়া গেলো। যাক শান্তি। উফফ! কি গরম। মানব সভ্যতা আর কতকাল সভ্য থাকবে এ নিয়ে এখন প্রশ্ন তোলা যেতেই পারে।

রাস্তার মোড়ে লস্যির দোকান দেখতে পেয়ে ছুটে গেল বসন্ত।
-দাদা কত করে?
-10 টাকা
-ও আচ্ছা। এক গ্লাস। ঠান্ডা তো?
-কি যে বলেন দাদা!
“না না…না আপনার ঘাম গুলো যেভাবে গড়িয়ে পড়ছে!” বসন্ত চেপে গেল কথাটা ।নইলে তার খবর আছে।
পাশের একটা শেডে গিয়ে বসল সে , দোকানদারের অনুরোধে।
-এই নিন দাদা।
-ধন্যবাদ।
আহা! অনবদ্য।
এক চুমুকে শেষ করে ফেললো পুরো গ্লাস। এমন সময় রাস্তার ওপারে দেখতে পেলো খুব চেনা মুখ। বৃষ্টি!

বৃষ্টি দেখতে পায়নি তাকে। বসন্ত 10 টাকা দিয়েই রাস্তা পার করলো। লাল সিগন্যাল।
-কি রে কেমন আছিস?
বৃষ্টি হঠাৎ বসন্তকে দেখে বেশ হতবাক।
-ইয়ে.. মানে ভালো আছি। তুই ভালো তো? এখানে!
-হ্যাঁ চলে যাচ্ছে । বই কিনতে এসেছিলাম ।
-ওওও..এখনও সেই বইয়ের নেশা আছে তবে।
-আরে না না, ssc এর প্রিপারেশন। ওটারই ইয়ার্স সলিউশন । যাইহোক, তুই এই পথে?
-এই তো আদি মোহিনী মোহন এ এসেছি।
-আচ্ছা । বাহ!
-আসলে..মানে ওই..আমার বিয়ে ঠিক হয়েছে ।
-আরে দারুন তো!
বৃষ্টি এই উত্তরের জন্য প্রস্তুত ছিল না একেবারেই।
-হ্যাঁ?
-কবে? বিয়ে কবে?
-পরের মাসে।
-ওহ, ভালো। যাইহোক , কতদিন পর দেখা। ভালো লাগলো। আর কাকু কাকিমা কেমন আছেন?
-ভালো আছে।
-আচ্ছা।

নিস্তব্ধতা ক্ষণিকের…

বৃষ্টি আর বসন্ত একসময় প্রেমিক-প্রেমিকা ছিল। অনেক প্রেম এর মতোই তাদের টাও সফল হয় নি।
বাড়ির চাপ, পড়াশোনায় গাফিলতি এসব নানা অকারণগুলো দূরত্ব এনেছিল। তারপরই একদিন সব শেষ করে বসন্ত অন্য গন্তব্যের অজুহাত দেয়।
বৃষ্টি! নাহ,  কালবৈশাখী এসেছিল সেদিন।
দুজন একে অপরের চোখে সেই প্রতিচ্ছবি  খুঁজে বেড়ায়।
-আজ একটু তাড়া আছে বুঝলি । আমি আজ আসি।
-হুম।
হঠাৎ আসি বলেই বসন্ত সামনের বাসে উঠে পড়লো খুব তাড়াতাড়ি।

বৃষ্টি একদৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকে বাসটার দিকে। বসন্ত পেছন ঘুরে তাকায় নি আর। চার বছর আগে ওভাবে ওর আর বৃষ্টির সম্পর্কটা শেষ হবে ভাবে নি কখনো। তবুও বাস্তব মেনে নেওয়ার দোটানায় সে অবশেষে বৃষ্টি কে থামায় নি। আজও সেই দোটানা আছে হয়তো , হয়তো বা সেই দোটানার কারণটা আর নেই।

এখন বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যে হতে চলল প্রায়। আকাশে মেঘ করেছে। ওই যে, ক্ষণিকের ঋতু পরিবর্তন। কাল আবার  রোদ উঠবে, একই রকমের গরম পড়বে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker