Short Poems
Trending

দেবীপক্ষ

দেবীপক্ষ পড়ে গেছে,
মা আসতে আর মাত্র ক’দিন!
পিতৃপক্ষের অবসান ঘটিয়ে দেবীপক্ষের সূচনা হয়েছে।
এই দেবীপক্ষেই নাকি সব অশুভ শক্তির বিনাশ হয়ে শুভ শক্তির সূচনা হয়।
বছর-বছর এই একই আশায় মানুষ দিন গোনে।
তবে কি এবার সত্যিই সব অশুভ শক্তির অবসান হবে?
মা কি সব পাপের বিনাশ ঘটাতে পারবেন?
সত্যিই কি কিছু পাল্টাবে?

দেবী দুর্গাও তো নারী, তিনিই আদিশক্তি!
বছর বছর ঘটা করে তার পুজোর আয়োজন হয়,
মাতৃজ্ঞানে তার আরাধনা হয়। আবার যারা এই নারীশক্তির আরাধনা করে,
এই নারীকেই দেবীরূপে পুজো করে,
তাদের হাতেই প্রতিদিন এই নারীদেরই নির্যাতিত হতে হয়, দলিত হতে হয়। তারাই বন্ধ ঘরে বউয়ের ওপর অত্যাচার করে, অন্ধকারে গায়ের জোরে নারীর যোনি ক্ষতবিক্ষত করে, রাস্তাঘাটে মেয়েদের বুকের-কাপড়ে থাবা বসায়!
মা দুর্গাকে প্রতিবছর বলে ‘আবার এসো মা’,
এদিকে কন্যা সন্তানকে ভূমিষ্ঠ হতে দেয় না,
বৃদ্ধ মায়ের গলা টিপে ধরে।
এ কেমন নারীশক্তির আরাধনা?
এ কোন্ দেবীপক্ষ?

মা দুর্গা, তিনিই তো মহিষাসুর মর্দিনী, অসুর দলনী।
তবে, সমাজের অসুরদের হাতে প্রতিনিয়ত দুর্গারা কেন নিহত হচ্ছে?
তবে কেন দুর্গাদের পিঠে কালশিটের দাগ?
কেন আজও দুর্গারা ন্যায়বিচারের অপেক্ষায়?
অ্যসিডে পোড়া মুখটা ঢেকে ঘর বন্দি হয়ে আছে, কেন?
কেন মাঠের ধারে এই দুর্গারই খোবলানো, রক্তাক্ত দেহ পাওয়া যায়?
এ কোন সমাজ যেখানে একদিকে নারী পূজিত হয় অন্যদিকে সেই নারীকেই নগ্ন করা হয়?
এ কোন দেবীপক্ষ?

আরও একবার দেবীর আগমনির সুর বেজেছে,
মা আবারও একবার আসছে অসুর দলনী হয়ে।
মনে আবারও আশা জাগছে,
সুবিচারের আশা, পাপ বিনাশের আশা।
আশা জাগছে যে, অশুভ শক্তির অবসান ঘটবে।
দুর্গারা সুবিচার পাবে, দুর্গারা মাথা তুলে বাঁচবে।
সত্যি সত্যিই নারীশক্তির আরাধনা হবে।
অসুরপক্ষের অবসান ঘটে এক নতুন দেবীপক্ষের সূচনা হবে।।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker