গরীব

আমি গরীব এর গান গাই, আমি সাম্যের গান গাই”

দুঃখ হেথায় নাগরদোলা, গরীব ঘরে বাস;

রঙ দিয়ে যায় মানুষ চেনা, মিথ্যের আশ্বাস।
থেমে যায় দিন, রাত্রি কঠিন, পিদিমের আলো জ্বলে,
উল্লাসী রাত, মত্ত নেশায়, এঁকে বেঁকে পথ চলে।

লঙ্গরখানা পূণ্য কামায় গরীব এর নাম ধরে;
হীনতা তবু একমুঠো চায় তেনার পায়ে পড়ে।
মরে মরে বাঁচে, আগুনের আঁচে, ও তার জ্বলার সাহস নাই-
অন্যায় সয়, জ্বলেপুড়ে রয়, নির্বাক তবু হায়।

রাত্রি নামে, আঁধার ধামে, স্বপ্ন অধরা রয়;
প্রতিভা যে তাই পদদলিতা, লক্ষ যাতনা সয়।
বিশ্বাস থামে, চন্দ্রের নামে, উদাসীন হয়ে বাঁচে
ভাঙ্গা শিরদাঁড়া,কন্ঠে তালা, তাদেরই যে শুধু যাচে।

ভেঙে যাওয়া দেশ, ভাঙিয়াছে দ্বেষ, আর একনায়কের রাজ,
দিনের আলো, কন্ঠ কালো, ও সে সর্বনাশী বাজ।
আবেগ ডাকে, বাদলের ফাঁকে, ভুলিয়ে দেওয়া খিদে;
বেদনা!সে কি বুঝবে তুমি,বর্শা দিয়ে বিঁধে?

সভ্যতা সব, করে কলরব,ও তার জরাগ্রস্ত দেশে,
অভিনেতা সব, থরথর কাঁপে বৃহস্পতি বেশে।
সংহতি চাই,সংহতি চাই, বাড়িয়ে দেওয়া হাত-
মিটিবে যে তবে ভেদাভেদ যত, মুখে তুলে নেব ভাত।

ওরা সাম্যতা বেচে জলের দামে, ও সে ভাগের খেলায় মাতে,
ওরা ভেদাভেদ নিয়ে গল্প লেখে, ভিক্ষার হাত পাতে।
এরা গরীব এর দল,কোনো অবকাশ, কবিতা লেখার স্থান,
ওরা বড়লোক, বড় বাস্তব, সমাজের মূল প্রাণ।

এটাও পড়ুন : আমি তিতির ( তৃতীয় পর্ব )

ব্যাথা ভুলে যায়, মহুয়া নেশায়, হারিয়ে যাওয়া রত্ন;
কত ভগবান এভাবেই ভাঙ্গে কত পথিকের স্বপ্ন।
যোগ্যতা ঘোরে, পথে ধারে ধারে, ও সে স্পর্শ নাহি চায়,
গরীব এর ছেলে নেশার আসরে কেঁদে ফেলে তাই হায়!

সবটুকু তবে তাহাতেই বাঁধা, তাহাতেই ভাঙ্গে, তাহাতেই গড়ে?
থমকে দাঁড়িয়ে, রাজ্য পেরিয়ে, কালবৈশাখী ঝড়ে এভাবেই ঝরে?
এভাবেই তবে মৃত্যু ঘটে হাজারো আশার রবির?
এভাবেই তবে জন্ম হয়েছে হাজার হাজার কবির?

বড়লোক তুমি রাতের আকাশে খুঁজে ফেরো কত
তারা,
কত-শত রাগ বিলীন হয়েছে, আমরা সর্বহারা।
আমরা সে জাত বৃষ্টিতে যারা পেয়েছিল বিদ্রোহ
আমরা সে দেশ, ভালোবাসা মাপি, মাতৃরূপেণ গ্রহ।

আমাদের রাত সংশয়ে কাটে, বাঁচবার তৃষা সাথে,
আমরা যে সব গরীব বেটা, কাজ করি হাতে হাতে।
রাত্রি এমন কেটে যাবে ঠিক, রাত্রি করবো জয়-
চিত্ত যেথা ভয়শূন্য, স্তব্ধ যেথা ভয়।

বিদ্রোহী তবে কাফন বাঁধিয়া ধর সাম্যের গান-

হিন্দু যেথায় নয়নমণি, মুসলিম তার প্রাণ।

আমি সাম্যের গান গাই-

“আমার হৃদয় মাঝে বিবেকের স্থান, হিয়ার মাঝে রবির,

আমার আঁখি জুড়ে বিদ্রোহের দাগ, শায়িত আছেন কবির।“-এই বিশ্বাসে বাঁধিয়াছি গান,মুসলিম তার নয়নমণি, হিন্দু তাহার প্রাণ।

©অর্পণ ব্যানার্জী