কষ্ট কী ?? বিলাসিতার আবর্তন নাকি হৃদয় ভাঙা রক্তক্ষরণ!!!!!!

কষ্ট কী??
ভাষারা যেমন ভাবে পথ হারায় দিকবিদিক জ্ঞান শূন্য হয়ে,
প্রেমে ব্যর্থ হবার পর।
নাকি যেখানে রুক্ষ দুপুরে দু গাছি চুল ওড়ে বৃদ্ধাশ্রমের জানলায়
অনুভূতিরা বাজতে থাকে বেসুরো ভাবে,
যখন হতাশায় মারা যায় প্রতিটি আবেগ,
নোনতা জলের রেখাগুলো শুয়ে থাকে অবহেলার চাটাইয়ে
কষ্ট কী তাহলে সেটা??

 

নাকি রাস্তার ওপরে শায়িত মানুষটা তখন নিথর হয়ে পড়ে
অনাহার নিবারনের প্রচেষ্টায় সে সিক্ত হয় মাদকের তেজস্ক্রিয়তার ঘামে
ওটাকে কী আমরা কষ্ট বলতে পারি??
রিক্ত নির্জন দুপুরে যখন শরীর নুয়ে পড়ে ক্লান্তের পদভারে
চটির ফিতে খানি সমব্যথী হতে না পেরে অবশেষে সেও হয়েছে ছিন্নভিন্ন
ঢলে পড়ে একসময় সে অস্তমিত সূর্যের মতো
এটাকে  কী  তাহলে কষ্ট  বলা যায়??
অনাদরে যখন কালশিটে দাগগুলো শুকিয়ে যায়
অঝোরে বর্ষা যখন নামে কপোততলে টপটপিয়ে
ঠুনকো কাচের মতো প্রানগুলো যখন চুল্লীর দ্বারে দাউ দাউ করে জ্বলে পণের অত্যাচারে
তাহলে সেটা কী??

 

ন মাস মাতৃস্পর্শে রজঃস্বলার ঘাসে প্রসবের পর যখন সে বন্দী হয় আবদ্ধ নীল পলিথিনের দম বদ্ধ করা ফাঁসে
পুড়ে ছাই হয় যখন ঐ সদ্যোজাতের হৃদয় অস্থি
তাকে কী  বলে আখ্যা দেয়া যেতে পারে??
নিভে যায় তখন প্রতিবিম্বের যোগাযোগ
স্মৃতিরা যখন দাপিয়ে বেড়ায় আজ ব্যস্ততার উঠোনে
কান্না গুলো নিয়েছে আশ্রয় হাসির মোড়কে
রোজকার চেনা মুখোশের আড়ালে পুরোনো আমি যখন হারিয়ে যাই পুরু মেকাপের আচ্ছাদনে
তখনও কিন্তু কষ্ট হয়!
চাদর চাপার গুমোটে যখন লোহিত রক্তকণিকা গুলো ভেজে
হারিয়ে যায় হঠাৎ একটি প্রান অচেনা লালসাদের ভীড়ে
অপেক্ষারা বাঁচে শুধু তখন বর্ষাকাতর আপেক্ষিকতার ছোঁয়ায়
তখন তাহলে  আমরা কী অনুভব করি??

তারপর যদি সমস্ত অব্যক্ত কথামালার ধ্বংসাবশেষের সংকলনের সংমিশ্রনের সৃষ্ট উপন্যাসে ভাঙ্গন ধরে,
রাতজাগা অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল গুলো যখন আত্মহননের পথে এগোয়
সবটা নিঃশেষ হয়ে যায় যদি এক লহমায়
কষ্ট হবে কী তখনও??
আমি তো এক সাধারণ মানুষ, কলমের খেলায় শব্দগুলোর শুধু আত্মপ্রকাশ ঘটাই,তাই অনুভব করে উঠতে পারিনি প্রকৃত কষ্টের অন্তর্নিহিত অর্থ এর গভীরতা ঠিক কতটা??
কষ্ট কিন্তু নিতান্তই ব্যক্তিগত
তাই এর সর্বত্র রাজত্ব
প্রশ্নের তাড়নায় হয়েছি আমি এখন নিরুপায়
উত্তরের আশায় আজ প্রশ্নের ভারটা না হয় দিলাম তোমায়।