একাকিত্বটা ভীষণ আপন

একাকিত্বটা আজকাল ভীষণ আপন হয়ে উঠেছে।
নাহ! আমি একাকিত্বে ভুগিনি,
একাকিত্বটাকে সঙ্গী করে নিয়েছি।
কি হল? হাসছেন বুঝি?
ভাবছেন,যার থেকে লোকে বেড়িয়ে আসতে চায়,
আমি কিনা তাকেই আবার আপন করেছি!

কেন করবো না বলুন তো?
চারপাশের মুখোশধারী মানুষের ভীড়ে
কোণঠাসা হয়ে কষ্ট পাওয়ার চেয়ে,
একাকিত্বকে আপন করে নিজেকে
নতুন করে খুঁজে পাওয়াটা ভাল নয় কি?

অন্তত্য কেউ মনের মধ্যে অবিরাম
ব্যঙ্গ আর অবহেলার ছুরি ফুঁকিয়ে
বুঝিয়ে দেবে না “শেষমেষ নেই তোর কেউ নেই”!
হাস্যকর লাগছে বুঝি?
ট্রেন্ডে গা ভাসাচ্ছি মনে হচ্ছে?
কখনও ভেবে দেখেছেন সবার মধ্যে থেকেও
কতটা একা আপনি?

ছোট্ট থেকে হ্যাপি ফ্যামিলির অভিনয় করে,
যারা রোজ রাতে বাবা-মার অশান্তির সাক্ষী
প্রতিবাদ না করতে পেরে গুমড়ে মরেছে,
এসব ছেড়ে দূরে পালিয়ে যেতে চেয়েছে।
তারা দিনের শেষে একটা শান্ত, নিস্চুপ একাকিত্ব খোঁজে না?

অনেকটা ভরসা জুগিয়ে যখন কেউ হাত বাড়ায়,
আর এই বোকা মন বিশ্বাসের পারদ চরিয়ে
হাত ধরে অটুট সম্পর্কের কল্পনায় বাঁচে।
কিন্তু সম্পর্কের মানেটা যখন শর্তে বাধা পরে,
কমপ্রমাইজরা যখন সিলিং ছোঁয়,
আত্মসম্মান যখন তলানিতে গিয়ে ঠেকে
দেওয়ালে পিঠ ঠেকে আসে
তখন মনে হয় না এই
আপাদমস্তক মিথ্যে সম্পর্কটা থেকে বেড়িয়ে
একা মাথা উঁচু করে বাঁচি?

ছোটবেলা থেকে “বুকের বাঁ-পাশে বন্ধুর বাড়ি”
টাইপ মিথ নিয়েই বড় হয়েছি।
বন্ধুুকে বুকের বাঁ-পাশে জায়গাও দিয়েছি,
প্রয়োজন শেষে ভোল পাল্টাতেও দেখেছি!
আসলে use and throw বন্ধুত্বের খাতায়
ভুল করে নাম লিখিয়ে ফেলেছিলাম বুঝিনি।
ঠিক তখনই নিজেকে দূরে সরিয়ে নিতে চেয়েছি,
নির্জনে নিজের সাথে কথা বলেছি,
নিজেই নিজের সবচেয়ে কাছের
বন্ধুটি হতে চেয়েছি।
একাকিত্বকে সঙ্গী করে নিজেকে
ভালবাসতে শিখেছি!

আসলে কি জানেন,
সম্পর্কের সংজ্ঞাগুলো যখন চোখের সামনে
পাশার দানের মতো উল্টে যেতে দেখবেন,
পরিবার,বন্ধু,কাছের মানুষগুলোকে যখনম্ফ
রং বদলাতে দেখবেন,
তখন মনে হবে এত বড় পৃথিবীর রঙ্গমঞ্চে
কতটা একা আপনি!
ঠিক মঞ্চের পর্দাটা ফেলার পরই দেখবেন
চারপাশের চরিত্রগুলো কেমন অচেনা!
যারা এতক্ষণ আপনার কাছের মানুষ সেজে
অভিনয় করে মঞ্চ কাঁপাচ্ছিল,
তারা যেন আপনাকে চেনেই না!
যে যার নিজের মতো চলে যাচ্ছে,
আপনি একা দাঁড়িয়ে আছেন, একা!

এই একাকিত্বটাকে আপন করবেন না?
অভিনয়ের পর্ব চুকিয়ে এবার আপনার
একান্তে নিজেকে খোঁজার তাগিদ জন্মাবে না?
চারিদিকের চরিত্রদের হট্টগোল সরিয়ে
একাকিত্বকে সঙ্গী করে একটা শান্ত
সন্ধ্যে নামা দেখতে ইচ্ছে করবেনা কি?
ভালবাসতে ইচ্ছে করবে না এই একাকিত্বটাকে?

Leave a Reply