মেয়ে কে এতো পড়াশোনা করিয়ে কী হবে?সেই তো বিয়ের পর রান্না করেই সংসার করতে হবে।(চায়ের কাপটা টেবিলে রাখতে রাখতে বললেন সালমা বেগম) কেন মা এই কথা বলছেন?(রেহানা পারভীন ) না মেয়েদের বেশি পড়াশোনা করিয়ে কী হবে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করে নিয়েছে অনেক আছে।ওইসব কলেজ পড়িয়ে কী হবে। তার থেকে ভালোContinue Reading

তারিখ টা ছিল ১৮ জানুয়ারি । ভীষণ কুয়াশা আর ঠান্ডা । আমরা ছয় বন্ধু মিলে শীতের আমেজ নিতে ঘুরতে গিয়েছিলাম ভুটান এ । সকাল আটটা নাগাদ আমরা নিজেদের ভাড়ার গাড়ি করে বেরিয়ে পরি । পৌছাই সেখানে এগারোটার সময় । পোছে সকালে টিফিন সেরে হোটেল খুঁজতে শুরু করে দি । আমরাContinue Reading

“শুভ, দিল্লিতে তোর চাকরি কেমন চলছে? কত বছর পর কলকাতায় ফিরলি।” “দিল্লিতে থাকার সময় বছর সাতেক এই কফি হাউসের কফি আর ফিসফ্রাই-এর কথা খুব মনে পড়েছে। নিজের শহরে ফিরে অদ্ভুত তৃপ্তি। তিলোত্তমাকে ছেড়ে কোথাও মন বসে না। কিন্তু চাকরি তো আর ছাড়তে পারবো না। অর্ক আর সাম্য তোদের ব্যবসার কীContinue Reading

সন্ধে নামতে তখনও দেরি ছিল। এমনিতে গাঁয়ের উত্তরপ্রান্তে নাকি শীতটা একটু বেশিই পড়ে। একে তো সন্ধে হলে এদিকে আলো-টালোর নামগন্ধ থাকে না। অন্যদিকে এক পশলা বৃষ্টি নেমে সমস্যাটা আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। এ জায়গায় মেঘ করলেই রাস্তায় জল জমে। বাক্যটা এখানকার জলহাওয়ার সাথে খাপে খাপে মিলে যায়। অন্তত লোকে তাই বলে।Continue Reading

রাতুল আর দিশা ওদের রাস্তাতেই পরিচয় । ওরা রোজ একি বাসে করে যায় । রাতুল সরকারী অফিস এ কর্মরত । আর দিশা কলেজে পরে ।ওদের কলেজ আর অফিস একি রাস্তায় পরে । প্রথম দিকে ওদের সেরকম একটা কথা হতো না । কিন্তু দুজন – দুজনকে দেখতো । হঠাৎ একদিন রাতুলContinue Reading

কলিংবেলের শব্দে ছুটে এসে দরজা খুললে পাটের তৈরী ব্যাগটি এগিয়ে দেয় একটি মেয়ে, হাসি মুখে শ্রীপর্ণা বলল – “ইস্ত্রি করা কাপড়গুলোর টাকা বিকেলে দোকানে দিয়ে আসবো।” নিস্পাপ মুখের কোণে একফালি হাসির সাথে মাথা নাড়িয়ে চলে যায় মেয়েটি। শ্রীপর্ণা বাড়ির ছোটো মেয়ে, ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ছে সে। সন্ধ্যাবেলায় প্রজেক্টের কিছু সরঞ্জাম কিনতে গিয়েContinue Reading

আজ পঁচিশ বছর পর আবার দেখা, প্রীতির পরনে একখানি ধুসর-নীলের শাড়ী, যতোই হোক বয়সতো বেড়েছে, আর সৌমিত্র তো আগাগোড়া বড়ো সাদামাটা, সেই পাঞ্জাবীতেই সীমাবদ্ধ। হটাৎ সামনাসামনি দিঘার সমুদ্র সৈকতে, চোখাচুখি হতে খানিকটা থতমত খেয়েই দুজন চোখ সরিয়ে নিয়েছিলো, কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে নিজেদের সামলে আবার তাকিয়েছিল একে অপরের দিকে!! এই পঞ্চাশেরContinue Reading

ক্রিং ক্রিং ক্রিং… (রিং হচ্ছে অর্পিতা-র ফোন।) – আরে ঘুমোলি না কি !? এই তো ধরেছে। – হুম বল!! কী রে এ সময়!! – এই অর্পি শোন না আজ একটা ঘটনা ঘটেছে !! – কী!? বল!! (ঘুম ঘুম কন্ঠে হাই তুলতে তুলতে) – আমি dinner এর পর বেলকনি তে দাড়িয়েContinue Reading

-“বিয়েটা পেছোতেই হবে রে মিতিল, এই পরিস্থিতিতে বিয়েটা করা কিকরে সম্ভব বল!” -(অনুচ্চ দীর্ঘশ্বাস) “জানিরে অভি, এখন আমাদের সব থেকে বেশি প্রয়োজন ফিল্ডে সামনে থেকে কাজ করা, afterall it’s an emergency.” -“সেই, আর এতদিন যখন দুজন সবটা হাসিমুখে সামলেছি তখন না হয় আর কটা দিন ও পারবো, কি বলিস?! জানিসContinue Reading

সকালে বাজার করতে যাওয়ার সময় বর্ষার মা কল্পনা দেবী ওকে ডেকে বলল -” বর্ষা মা, তোর মাসি খুব অসুস্থ,তাই আমি দেখতে যাছি। বাজার করে নিয়ে এসে তোর ইচ্ছে মতো রান্না করে, ঠাম্মী আর রিমঝিমের সাথে খেয়ে নিস।” -” আচ্ছা মা ঠিকাচ্ছে, তুমি সাবধানে যেও।” …কিছুক্ষণ পরে কল্পনা দেবীও রওনা দেয়Continue Reading

আমি প্রবাল মুখোপাধ্যায়। ক্লাস টেন -এ পড়ি। আমার দাদু প্রভাত কুমার মুখোপাধ্যায়। কোনো দিন তাকে কোনো অসৎ কাজে দেখি নি। আজ আমার বড়ো জ্যেঠুর মেজো ছেলে অর্থাৎ আমার মেজদার বিয়ে। শ্রীমতি নিরুপমা দস্তিদার -এর সাথে। মেজদার প্রেম তিন বছরের , সবাই প্রথমে একটু অরাজি ছিল বৌদির চাকরি করা নিয়ে তবেContinue Reading

দক্ষিণ ২৪ পরগনার একটি প্রত্যন্ত গ্রামে মা, বাবা আর ভাইয়ের সাথে বাস করে তিতলি। গ্রামের স্কুলে ক্লাস নাইনে পড়ে সে। তিতর স্বপ্ন বড় হয়ে সে পুলিশ অফিসার হবে। টানাটানির সংসারে দুবেলা খেতে পাওয়াই যেখানে দুস্কর, সেখানে এই স্বপ্ন দেখা বিলাসিতার সমান। কিন্তু তবুও তিতলি তার স্বপ্নটাকে বুকে আঁকড়ে ধরে লড়াইContinue Reading

সারাদিন ঝোড়ো হাওয়া আর অবিরাম বৃষ্টিপাত, আকাশ যে আজ কোনো বাঁধ মানছে না। গতকাল আমার ছোটবেলার বন্ধু কমলেশ- এর গাড়ি দুর্ঘটনায় আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তির খবর শুনে কলকাতা থেকে দুদিন অফিসের ছুটি নিয়ে করিমপুর এলাম। কিন্তু আজকের আবহাওয়া অনুকূল নয়, কোনো যানবাহন নেই, আজ ঘরেই থাকতে হবে মনে হচ্ছে। সন্ধ্যারContinue Reading

ছবি- google

জীবনে অনেক মানুষের সাথে পরিচয় হয়। কেউ কেউ চিরস্থায়ী হয়ে থেকে যায়, কেউ আবার ক্ষণিকের জন্য। কিন্তু তা বলে কি আমরা তাদের ভুলে যেতে পারি বা ভুলে যাওয়া যায়? কখনোই না। স্মৃতির আস্তরণে ধীরে ধীরে চাপা পড়ে যায়। তবে কখনো প্রয়োজন হলেএকটু ঘষা মাজা করলেই সেই আস্তরণ ঠিক কেটেও যায়।Continue Reading

কখনো কখনো এমন কিছু মূহুর্ত আসে যখন মনে হয় এবার সবটা শেষ‌। এবার আর ফেরার পথ নেই, নেই কোনো বিকল্প রাস্তা, নতুন করে শুরু করার কোনো উপায় নেই। কিন্তু সবটা তখনও শেষ হয় না। হয়তো কিছুদিন খারাপভাবে কাটে, বড্ড গুমোট হয় দিনযাপন, তবে এসবের মাঝে কিছুটা সময় নিজের সাথে কাটে।Continue Reading

তখন আমি কলেজে পড়ি। পদার্থ বিজ্ঞানের ছাত্র। অশরীরীকে সিগারেটের ধোঁয়ায় চাপিয়ে ফুঃ! করে উড়িয়ে দেওয়া ধাতে না থাকলেও, স্বভাবে আত্মস্থ করতে হয়েছিল। মনে মনে বিশ্বাস করলেও বন্ধুদের সামনে মুখ খোলাটা, অনেকটা ক্রিকেট খেলায় পাকিস্তানের কাছে ভারতের হেরে যাওয়ার মতো অপমান ও লজ্জার বিষয় ছিল। তবে টুকটাক জ্যোতিষী, ভূত-প্রেতিনী তত্ত্ব পাড়াতুতোContinue Reading

সরস্বতী পুজো মানেই একরাশ নস্টালজিয়ার পাহাড়। মায়ের কাছে শাড়ি পরিয়ে দেবার বায়না, সেজেগুজে ইস্কুল যাওয়ার উত্তেজনা, বন্ধুদের সাথে একসঙ্গে বসে খাওয়া আরো কত কী! সেই একটা দিন যেন স্যার বা দিদিমণিরা হয়ে যেতেন একদম খোলামেলা। পুজোর কিছুদিন আগে থেকেই তোড়জোড় শুরু হয়ে যেত। বন্ধুরা মিলে আল্পনা দেওয়া, ঘর সাজানো, কাগজContinue Reading

IMG_27012021_003752_(600_x_400_pixel)-586169d5

‘পিছুডাক’ নাকি বড্ড বাজে জিনিস! যাত্রার সময় পিছুডাক শোনা মাত্রেই, সে’দিনের সব কাজ নাকি ভন্ডুল হয়ে যায়! সবটাই যদিও শোনা কথা, তবু… যেচে পড়ে কেই বা নিজের কাজ মাটি করতে চায়! তাই ‘পিছুডাক’ ব্যপারটাতে আরব্ধ ঘোষালের বড্ড অ্যালার্জি। কিন্তু কথায় বলে না, যেখানে বাঘের ভয়, সেখানে সন্ধ্যে হয়। আরব্ধর জীবনেওContinue Reading

বাড়ির সবার খাওয়া শেষ। এবার খেতে বসবে ঘোষাল বাড়ির ছোট বৌমা। এবাড়িতে আসা ইস্তক এইটাই চলে আসছে। অসুস্থ শ্বাশুড়ি, ছোট দুই ননদ,ভাসুর আর অকর্মণ্য বড় জা -স্মিতা যে বিয়ের পাঁচ বছরে তিনবার গর্ভবতী। সে  অধিকাংশ সময় বিছানায় শুয়ে থাকে।তার জন্য সংসারের দায়িত্ব নিতে গিয়ে বেহাল দশা কমলিকার। তার নিজের কোলContinue Reading

কতই বা বয়স লিপিকার। অল্প বয়সেই তার উপর দিয়ে অনেক ঝড় বয়ে গেছে। বাবা রাজমিস্ত্রির কাজ করতো। চার ভাইবোনের মধ্যে লিপিকাই বড়ো। সে পড়াশোনায় এবং তার গানের গলা খুব ভালো। স্কুলের দিদিমণি মাস্টারমশাইরা বলতেন এই মেয়ে একদিন অনেকদূর যেতে পারবে। কিন্তু ভাগ্যের কি পরিহাস বাবা মারা যাওয়ার কিছুদিন পরেই মায়েরContinue Reading