“ভারত ও নিউজিল্যান্ড” – ওয়ার্ল্ড কাপের সেমিফাইনালে মুখোমুখি হতে চলেছে এই দুটি টিম। গতকালের শ্রীলংকার সাথে একটি বড় […]

10 বছরের এক মায়াবী যাত্রার অবসান ঘটল Avengers endgame এর মাধ্যমে।

তবে প্রথমেই জানিয়ে রাখি যে এই রিভিউটির মধ্যে অনেক endgame এর স্পয়লার থাকতে চলেছে। তাই যারা যারা এখনো পর্যন্ত Avengers endgame দেখেননি তারা আগে endgame দেখে নিন। তারপর এই রিভিউ টি পড়বেন।

অভিজ্ঞতা ও পারফর্মেন্স:

এই মায়াবী যাত্রার সূচনা হয়েছিল 10 বছর আগে আয়রন ম্যান সিনেমাটির দ্বারা। আর দশ বছর পর অবসান হলো Avengers endgame এর মধ্যে দিয়ে সেই আয়রন ম্যানের হাত ধরেই।

সাধারণ মানুষের কাছে অর্থাৎ যারা Avengers , Marvel ফ্যান নন তাদের কাছে এই সিনেমাটি কতটা ভাল লাগবে জানিনা তবে একজন Avengers এবং marvel ফ্যান হয়ে এটুকু বলতে পারি যে আমাদের সিনেমাটি বাকরুদ্ধ করে রেখেছে শেষ মুহূর্ত অবধি।

সিনেমার গল্প ,সিনেমাটোগ্রাফি, ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক এবং প্রত্যেকটি ক্যারেক্টার এর অভিনয় তাক লাগিয়ে দিয়েছে।

সিনেমায় Thanos  ভূমিকায় অভিনয় করা জোশ ব্রোলিন থেকে শুরু করে আমাদের সবার পছন্দের আয়রন ম্যান এর ভূমিকায় রবার্ট ডাউনি জুনিয়র এককথায় অনবদ্য।

প্রত্যেক বারের মত রবার্ট ডাউনি জুনিয়রের  অভিনয় প্রত্যেকটা দর্শকের মনে সারা জীবনের জন্য দাগ কেটে রাখবে।

Endgame ক্যাপ্টেন আমেরিকার চরিত্রে অভিনয় করা ক্রিস ইভানস-এরও শেষ Marvel সিনেমা। তিনিই এই সিনেমায় নিজের 100% দিয়ে কাজ করেছেন।

সবকটা চরিত্রকে এই ছোট্ট লেখার মাধ্যমে বিচার করা খুবই কষ্টকর।

Avengers endgame এর ডিরেক্টর অ্যান্থনি রুশো এবং জো রুশো যে মায়াবী দুনিয়াটা করেছেন 3 ঘণ্টা পরেও সেই দুনিয়া থেকে বেরিয়ে আসা খুব সোজা নয়।

এবং এখানে বিশেষভাবে উল্লেখ করি অ্যাভেঞ্জার্স এন্ডগেম এ ব্যবহৃত কম্পিউটার গ্রাফিক্স খুবই উন্নত মানের যেখানে কোন ভুল হওয়ার অবকাশ নেই।

হয়তো তারা যেটা গড়তে চেয়েছিলেন তার থেকেও বেশি কিছু করে দেখিয়েছেন | আর সেই জন্যেই Avengers endgame এতটা স্পেশাল হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এই সিনেমা প্রত্যেকটা মানুষকে হাসাবে ,অবাক করবে ,কাঁদাবে।এই ধরনের সিনেমা হয়তো যুগে বা দশকে একবারই আসে।

আর তাই মনে হয়,

আজ কাল কার ব্যাস্ত জীবনে আমরা প্রায় ঘরের রান্না খাওয়া ভুলেই গেছি । রোজ রোজ বাইরের খাওয়ার খেয়ে আমাদের হজম শক্তির ও বারোটা বাজছে। তাহলে কি আমরা বাইরের খাওয়ার খাওয়া ছেড়ে দেবো ? না। শুধু কিছু অভ্যেস বদলালে হতে পারে কেল্লা ফতে।

আজ আমরা আলোচনা করবো এমন ছয়েটি উপায় যা আপনার হজম শক্তি বৃদ্ধি করবে।

১. ফাইবার যুক্ত খাওয়ার বেশী করে খান

   হ্যাঁ, ফাইবার যুক্ত খাদ্য খাওয়া খুব জরুরি। কারণ, ফাইবার যুক্ত খাদ্য আমাদের পরিপাক নালি দিয়ে খুব সহজেই যেতে পারে। কিন্তু বেশি ফ্যাট যুক্ত খাদ্য হজম করা শক্ত ও বেশি সময় লাগে হজম হতে। তাই আপনার খাদ্য তালিকায় ফাইবার যুক্ত খাদ্য থাকা খুব জরুরি।

২. জল খান বেশি করে

এটি আপনাদের জানা থাকলেও খুব কম মানুষই আছেন যারা এটি মেনে চলেন। জল আপনার খাওয়ারের মধ্যে থাকা ফ্যাট ও ফাইবার কে ভাঙতে সাহায্য করে।  ফলে আপনার খাওয়ার হজম হয় খুব তাড়াতাড়ি। তাই ডায়েট চার্টে জল এর পরিমাণ বেশি থাকা আবশ্যক।

৩.গরম খাওয়ার খান

আপনাদের পরিপাক তন্ত্রের উষ্ণতা দরকার হয় আপনার খাদ্য কে হজম করতে। তাই যদি খাওয়ার প্রথম থেকেই গরম থাকে, তবে পরিপাক তন্ত্রের কাজ অনেক সহজ হয়। আপনার হজম ও হয়ে যাবে তাড়াতাড়ি।

৪. স্ট্রেস কমান

স্ট্রেস কিংবা কোনো কিছু নিয়ে উদ্বিগ্নতা কিন্তু আপনার হজম শক্তির দুর্বলতার কারণ। হ্যাঁ, কারণ আপনার মস্তিষ্ক ও পরিপাক তন্ত্র ওতপ্রোত ভাবে জড়িত। যতটা পারবেন স্ট্রেস কমানোর চেষ্টা করুন। ঘুমান বেশি করে। দেখবেন হজম শক্তি অনেক বেড়ে যাবে।

৫. ধূমপান ত্যাগ করুন

ভাবছেন ধূমপানের সাথে হজমশক্তির সম্পর্ক কোথায়?আছে, সম্পর্ক । ধূমপান আপনার হজম শক্তি কমিয়ে দেয়। ধূমপান আপনার পরিপাক তন্ত্রের অঙ্গ গুলি কে দুর্বল করে দেয় । এমনকি ধূমপান Gastrointestinal Cancer এর  কারণ ও হতে পারে।

৬. Probiotics খাওয়া অভ্যেস করুন

আপনারা অনেকেই হয়ত জানেননা probiotics জিনিসটি আসলে কি। Probiotics হলো এমন একটি তরল পদার্থ যার মধ্যে অসংখ্য উপকারী ব্যাক্টেরিয়া থাকে। যা হজমে খুব সক্রিয় ভাবে সাহায্য করে। এবং এগুলি শরীরের পক্ষে খুব উপকারী। কারণ এগুলো শরীরে থাকা ক্ষতিকারক ব্যাক্টেরিয়া গুলি কে মেরে ফেলে শরীরের প্রতিরোধী ক্ষমতা বাড়ায়। তাই হজমশক্তির বৃদ্ধি করতে হলে Probiotics জরুরী।

এই ছিল ছয় টি উপায় যা বৃদ্ধি করে আপনার হজম শক্তি। আশা করি আপনারা এগুলি মেনে চলবেন ও নিজের শরীরের প্রতি যত্নবান হবেন।

ভালো থাকুন। ভালো রাখুন।